News Update: 'শিক্ষা নিয়ে গড়ব দেশ শেখ হাসিনার বাংলাদেশ'

History:

অবিভক্ত ব্রিটিশ বাংলার উনিশ শতকের দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে আধুনিক শিক্ষা বিষয়ক ঐতিহাসিক নীতিমালা আশ্রয় করে কলেজস্তরের শিক্ষা প্রসারে সম্ভাবনার সৃষ্টি করে।পাবনার জেলাবাসীর প্রতীক্ষার কাল খুব বেশি দীর্ঘ হয় নি,ঐ শতকেরই শেষে ১৮৯৮ খ্রিস্টাব্দে এ জেলা শহরে কলেজ প্রতিষ্ঠার দীপ্তিময় ইতিহাস রচিত হয়।স্বাধীন বাংলার সীমানায় তখনও কোনো বিশ্ববিদ্যালয় বা শিক্ষাবোর্ড গড়ে ওঠেনি,উত্তরাঞ্চলের বিশাল এলাকায় রাজশাহী কলেজ ছারা আর কোনো কলেজ ছিলনা।কলেজ  প্রতিষ্ঠার এই প্রোজ্জ্বল  প্রেক্ষাপটে একজন মানুষের নাম উচ্চারন করতেই হয়,যে মানুষটির উৎসাহে ও দৃঢ় প্রত্যয়ে পাবনার নতুন প্রজন্মের সাথে আধুনিক শিক্ষার সময়োচিত সংযোগ স্থাপন সম্ভব হয়েছিল –তিনি হলেন শ্রী গোপাল চন্দ্র লাহিড়ী।
পদ্মা যমুনার বিধৌত পলিমাটিতে ইতোমধ্যে (১৮২৮খ্রি.) জেলার ভৌগোলিক সীমানা চিহ্নিত হয়ে যাওয়া পাবনা নামের ভূখন্ডের জেলা শহরে ১৮৯৮খ্রিস্টাব্দের জুলাই মাসে শ্রী গোপাল চন্দ্র লাহিড়ী তারই প্রতিষ্ঠিত ‘পাবনা ইনস্টিটিউশন বিদ্যালয় (প্রতিষ্ঠিত ১৮৯৪ খ্রি.,বর্তমানের গোপাল চন্দ্র ইনস্টিটিউট)-এর একটি কক্ষে নতুন কলেজের দ্বারোদ্ঘাটন করলেন এবং প্রধান শিক্ষকতার সাথে অধ্যক্ষের দায়িত্বেও সমাসীন হলেন। সে বছরেরই ডিসেম্বরে F.A Standard কলেজ হিসাবে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তিলা Read More...

Principal's Massage:

photo

ইছামতি নদীর তীর ঘেষে সবুজের সমারোহে ঘেরা পাবনা শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত বাংলাদেশের অন্যতম একটি বিদ্যাপিঠ সরকারি এডওয়ার্ড কলেজ ।শিক্ষা, সাহিত্য , ইতিহাস-ঐতিহ্য ক্রীড়া ও সংস্কৃতি বিকাশের অন্যতম  এই বিদ্যাপিঠ  ৪৯ একর জায়গা জুড়ে ১৮৯৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৭ বিষয়ে অনার্স, মাস্টার্স ও ডিগ্রি পাস কোর্সে প্রায় ২৬ হাজার শিক্ষার্থী সাবলীল এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লেখাপড়া করছে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজ গুলোর মধ্যে ২০১৭ সালে সারা বাংলাদেশে ২য় স্থান অধিকার করার গৌরব অর্জন করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৭ সালে অধ্যক্ষসহ কলেজের অনেক শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রী স্থানীয়, আঞ্চলিক ও জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন পুরস্কারে ভ‚ষিত হয়েছে।এ প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষা অর্জন করে লক্ষ লক্ষ ছাত্রছাত্রী তাদের মেধা ও সৃজনশীলতা কাজে লাগিয়ে রাষ্ট্রের আর্থ-সামাজিক, ক্রীড়া,সাংস্কৃৃতিক ও রাজনৈতিক উন্নয়নে অতীতে যেমন প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছে তেমনি বর্তমানে বৈশ্বিক এজেন্ডা বাস্তবায়ন ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে যথেষ্ট অবদান রেখে যাচ্ছে।
উচ্চ মাধ্যমিক ভর্তি কার্যক্রম ১৯৯৭ সালের পর বন্ধ থাকলেও বৃহত্তর পাবনা বাসীর প্রাণের দাবী পাবনা পাঁচ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক প্রিন্স ও শিক্ষা বান্ধব সরকারের অনুকুল্যে ২০১৫-১৬ ইং শিক্ষাবর্ষ থেক

Read More...

Vice Principal's Message:

photo

শত বর্ষের ঐতিহ্যবাহী এডওয়ার্ড কলেজ বাংলাদেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিদ্যা পীঠ। শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত সবুজে ঘেড়া, ছায়া সুনিবিড়, পাখি ডাকা শান্ত অঞ্চলে অবস্থিত কলেজেটির রয়েছে এক সু-দীর্ঘ ইতিহাস। আজ থেকে বহু বছর আগে দার্শনিক শিক্ষক মহামতি সক্রেটিস বলেছিলেন  ‘Knowledge is Virtue’  অর্থাৎ “জ্ঞানই পুণ্য, জ্ঞানই নৈতিকতা” শিক্ষাই নৈতিকতা সৃষ্টি করে। তাঁর এই ধারনাকে লালন করে বিদগ্ধ পন্ডিত শিক্ষাগুরু শ্রী গোপাল চন্দ্র লাহিড়ী যিনি এ অঞ্চলের মানুষকে অন্ধকার থেকে আলোর মশাল হাতে ১৮৯৮ খ্রিষ্টাব্দের এক সোনালী সকালে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ‘দি পাবনা ইনস্টিউশন’ যা পরবর্তী কালে ঐতিহ্যবাহী এডওয়ার্ড কলেজ নামে অভিহিত হয়।
    ব্রিটিশ শাসনামলে প্রতিষ্ঠিত এ বিদ্যাপীঠ এ অঞ্চলের মানুষের মাঝে উচ্চ শিক্ষা বিস্তারে অগ্রণী ভূমিকা পালনের পাশাপাশি উন্নত জাতি ও সমৃদ্ধ দেশ গঠনে অনন্য ভূমিকা পালন করছে। উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রে এ কলেজ আজ এক উজ্জ্বল মাইল ফলক। সুদীর্ঘ পথ চলায় এ কলেজ ক্ষুদ্র অবস্থান থেকে আজ এক মহিরুহে পরিণত হয়েছে। বর্তমানে ১৭ টি বিষয়ে অনার্স, মাস্টার্স, ডিগ্রী (পাস) কোর্স ও একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণি সহ প্রায় ২৬ হাজার শিক্ষার্থীর পদচারণায় মুখরিত এ বিদ্যাপীঠ।
সুপ্রাচীন এ বিদ্যাপীঠটি অসংখ্য বিজ্ঞানী, কবি, সাহিত্যিক, কৃতিশিল্পী, সাংবাদি Read More...

Cyber Head's Massage:

photo

Lorem ipsum dolor sit amet, consectetur adipiscing elit. Fusce egestas erat quis ante egestas, nec dictum erat malesuada. Nulla facilisi. Donec in justo sodales dui vestibulum feugiat. Proin pellentesque arcu elementum nisi ornare mattis non eget metus. Nullam lobortis magna at vestibulum eleifend. Vivamus in arcu nibh. Phasellus fermentum rhoncus vehicula. Praesent accumsan, nunc nec posuere congue, quam arcu mattis quam, ac volutpat urna dui iaculis magna. In hac habitasse platea dictumst.

Sed laoreet at odio vitae luctus. Duis eros augue, pellentesque vitae fringilla vitae, vestibulum porttitor magna. Duis volutpat lacus ut maximus sollicitudin. Pellentesque nulla odio, convallis vel lacus ut, maximus convallis felis. Nulla semper convallis libero nec porttitor. Sed nec suscipit magna. Nam malesuada libero vitae nibh tempor convallis. Curabitur lorem magna, imperdiet ornare sodales a, fringilla et turpis. Proin sed lorem aliquet eros suscipit egestas. Fusce ut nunc sed Read More...